আইপিএল (IPL)-এ করোনাভাইরাসের হানা,স্থগিত কেকেআর-আরসিবি ম্যাচ।

প্রকাশিত: ১০:০৯ পূর্বাহ্ণ, মে ৩, ২০২১

আইপিএল (IPL)-এ করোনাভাইরাসের হানা,স্থগিত  কেকেআর-আরসিবি ম্যাচ।
আবারও করোনা ভাইরাস থাবা বসাল কলকাতা নাইট রাইডার্স শিবিরে। প্রভাব এতটাই যে আইপিএল এ রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালোরের বিরুদ্ধে নাইটদের আজকের ম্যাচ স্থগিত করে দেওয়া হল। এক সূত্র মারফত জানা গিয়েছে যে,  কোভিড ১৯-এ আক্রান্ত কেকেআরের একাধিক সদস্যকে আইসোলেশনে পাঠানো হয়েছে। কবে হবে এই ম্যাচ, তা পরে জানিয়ে দেওয়া হবে বলে জানিয়েছে বিসিসিআই।
 আজ সন্ধ্যায় আহমেদাবাদের নরেন্দ্র মোদী স্টেডিয়ামে চলতি আইপিএলের ৩০তম ম্যাচে, রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালোরের মুখোমুখি হওয়ার কথা ছিল। খেতাব জয়ের দৌড়ে টিকে থাকতে এই ম্যাচ জিততেই হত ইয়ন মর্গ্যান শিবিরকে। তার আগেই কেকেআর শিবিরের এক স্পিনার এবং ফাস্ট বোলারের কোভিড ১৯ টেস্ট রিপোর্ট পজিটিভ এসেছে বলে জানিয়েছে বিসিসিআই।
সোমবার ভারতীয় বোর্ডের তরফে এক বিবৃতি জারি করে জানানো হয়েছে কেকেআরের প্রথম একাদশের নিয়মিত সদস্য বরুণ চক্রবর্তী এবং রিজার্ভ বেঞ্চের সন্দীপ ওয়ারিওরের প্রথম কোভিড ১৯ টেস্ট পজিটিভ এসেছে। সেই রিপোর্ট সঠিক কিনা, তা যাচাই করার জন্য তাঁদের আরও একটি করোনা টেস্ট করা হয়েছে। সেই রিপোর্টের দিকে তাকিয়ে রয়েছে অভিনেতা শাহরুখ খানের দল।
তবে আপাতত কেকেআরের দুই সদস্যকে আইসোলেশনে সরিয়ে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। বরুণ ও সন্দীপকে দলের ডাক্তারদের পর্যবেক্ষণে রাখা হয়েছে। দলের বাকি সদস্যরা কোভিড ১৯ নেগেটিভ হওয়ায় নাইট শিবিরের জৈব সুরক্ষা বলয় আরও আঁটোসাঁটো করা হয়েছে। প্রত্যেকের ফের করোনা টেস্ট করানো হবে বলে জানিয়েছে বিসিসিআই।
অন্যদিকে দেরি না করে কড়া সিদ্ধান্ত নিয়ে ফেলেছে বিসিসিআই। গুজরাত ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশনের সঙ্গে কথা বলে বোর্ড আজকের কেকেআর বনাম আরসিবি ম্যাচ স্থগিত করে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে ভারতীয় বোর্ড। উল্লেখ্য আইপিএল শুরুর আগেই করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছিলেন কেকেআরের নীতীশ রানা। দীর্ঘদিন আইসোলেশনে থাকার পর তিনি দলের অনুশীলনে ফিরেছিলেন। টুর্নামেন্ট শুরুর আগে কোভিড ১৯-এ সংক্রামিত হয়েছিলেন অন্যান্য দলের বেশ কয়েকজন ক্রিকেটারও।
বাড়তে থাকা করোনা ভাইরাসের আতঙ্কে আইপিএল না খেলে দেশে ফিরে গিয়েছেন অস্ট্রেলিয়ার তিন জন ক্রিকেটার। টুর্নামেন্ট না খেলার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন ভারত তথা দিল্লি ক্যাপিটালসের স্পিনার রবিচন্দ্রণ অশ্বিন। দেশের স্বাস্থ্য ব্যবস্থা ভেঙে পড়ার মতো পরিস্থিতিতে আইপিএলের মতো জমকালো ইভেন্ট আয়োজন নিয়ে তখনও প্রশ্ন তোলা হয়েছিল। টুর্নামেন্ট চলাকালীন কেকেআর শিবিরে ফের করোনা থাবা বসানোয়, সেই প্রশ্নই আরও একবার প্রাসঙ্গিক হয়েছে। বিভিন্ন মহল থেকে আইপিএল বন্ধেরও দাবি তোলা হয়েছে।